পাবনায় ৫৬ লক্ষ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ড্যাফোডিলস‘র ম্যানেজার কারাগারে

0

বার্তা সংস্থা পিপ, পাবনা : ৫৬ লক্ষ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ডিষ্ট্রিবিউটর প্রতিষ্ঠান ‘ড্যাফোডিলস’ এর চাটমোহর শাখার ম্যানেজার আসাদুজ্জামান আফাজ (৩৫) কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পরে তাকে আদালতের মাধ্যমে পাবনা কারাগারে পাঠানো হয়।

সম্প্রতি প্রতিষ্ঠানের বাৎসরিক অডিটে বিষয়টি ধরা পড়লে এ ব্যাপারে চাটমোহর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। আফাজ বর্তমানে পাবনা কারাগারে রয়েছে।

আফাজ লালপুর উপজেলার দুয়ারিয়া ইউনিয়নের আহম্মদপুর (কলসনগর) গ্রামের আঃ রাজ্জাক মন্ডলের ছেলে।

পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, প্রায় তিন বছর ধরে ‘ড্যাফোডিলস’ এর চাটমোহর শাখার ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত ছিলেন আফাজ।

চলতি বছরের ২৯ মে কোম্পানীর জিএম কামরুল ইসলাম জানতে পারেন উক্ত ম্যানেজার গোপনে প্রতিষ্ঠানের ৩৪ লাখ ৬১ হাজার ৯৪০ টাকার বিভিন্ন পন্য বিক্রি করে আত্মসাত করেছেন।

যা অনুসন্ধানে প্রমানিত হয় এবং একই দিনে সন্ধ্যায় অফিসে পণ্য বিক্রির ২১ লাখ ১৪ হাজার ৪৯০ টাকা কম পাওয়া যায়।

সব মিলিয়ে ৫৬ লাখ ৩১ হাজার ৪৩০ টাকা আত্মসাত করেন ম্যানেজার আসাদুজ্জামান আফাজ।

সে সময় আফাজকে সঙ্গে নিয়ে ওই শাখার কর্মকর্তারা ড্যাফোডিলস এর ঈশ্বরদী প্রধান অফিসে নিয়ে এসে তার সামনেই সকল হিসাব-নিকাষ পরীক্ষা-নিরিক্ষা করা হলে আত্মসাতের বিষয়টি প্রমানিত হয়।

পরবর্তীতে ঘটনাটি আফাজের আত্মীয়-স্বজন ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের অবহিত করলে তারা দুই দিনের মধ্যে টাকা প্রদানের আশ্বাস দেয়।

কিন্তু সময় পার হলেও তারা টাকা পরিশোধ না করে বিভিন্ন টালবাহানা করে সময় ক্ষেপন করেন।

পরে বুধবার চাটমোহর থানায় মামলা দায়ের করে তাকে পুলিশের হাতে সৌপর্দ করা হয়। চাটমোহর থানায় মামলা নং- ১০। পুলিশ তাকে আদালতের মাধ্য্যমে কারাগারে পাঠায়।

বিভিন্ন সুত্রে জানা গেছে, আফাজ একজন লম্পট প্রকৃতির লোক। তার একাধিক স্ত্রী রয়েছে। আত্মসাতের টাকা দিয়ে সে চাটমোহরে জমি কিনেছে এবং অন্য ব্যবসায় অর্থ বিনিয়োগ করেছে।

এ ছাড়াও বিভিন্ন ব্যাংকে তার একাধিক একাউন্ট রয়েছে বলেও সুত্রে জানা গেছে।

অপর দিকে মামলা তুলে দিতে আফাজ এর পক্ষের লোকজন ‘ড্যাফোডিলস’ এর সত্বাধিকারী আব্দুল মান্নান টিপু ও মামলার বাদীকে নানা ভাবে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে ও হুমকি-ধামকি দিচ্ছে বলে জানা গেছে।