চলে গেলেন অভিনেত্রী রাণী সরকার

0

ঢাকাই চলচ্চিত্রের সোনালী দিনের নন্দিত অভিনেত্রী রাণী সরকার মারা গেছেন (ইন্নালিল্লাহি …রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৬ বছর। তিনি দীর্ঘদিন ধরে ফুসফুস ও বার্ধক্যজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন। রাণী সরকারের শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে গতকাল শনিবার ভোর চারটায় ধানমন্ডির ইডেন মাল্টি কেয়ার হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে বেলা দুইটায় রাণী সরকারের মরদেহ এফডিসিতে নেওয়া হয়। সেখানে চলচ্চিত্রের অভিনয় শিল্পী ও অন্যান্য কলাকুশলীরা তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জানান। তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে আসেন চিত্রনায়ক আলমগীর, খসরু, সুব্রত, জায়েদ খান, সায়মন, পরিচালক সমিতির সভাপতি গুলজার প্রমুখ। সেখানেই তার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর আজিমপুর কবরস্থানে দাফন করা হয় তাকে।

চলচ্চিত্রে অবদানের জন্য ২০১৬ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান। আজীবন সম্মাননা দেওয়া হয় তাকে। সাতক্ষীরা জেলার কালীগঞ্জ থানার সোনাতলা গ্রামে জন্ম রাণী সরকারের। তার আসল নাম মোসাম্মত্ আমিরুন নেসা খানম। তার বাবার নাম সোলেমান মোল্লা এবং মায়ের নাম আছিয়া খাতুন।

১৯৫৮ সালে ‘বঙ্গের বর্গী’ মঞ্চনাটকের মাধ্যমে রাণী সরকারের অভিনয় জীবন শুরু করেন। ১৯৫৮ সালে রাণী সরকারের চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় এ জে কারদার পরিচালিত ‘দূর হ্যায় সুখ কা গাঁও’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে। ১৯৬২ সালে বিখ্যাত চলচ্চিত্রকার এহতেশামুর রহমান পরিচালিত উর্দু চলচ্চিত্র ‘চান্দা’তে অভিনয় করেন। সেই ছায়াছবির পর থেকে তার পিতৃপ্রদত্ত নাম মেরীর বদলে নতুন নাম হয় রাণী সরকার। পরে উর্দু ছায়াছবি তালাশ ও বাংলা ছায়াছবি নতুন সুর-এ কেন্দ্রীয় নারী চরিত্রে অভিনয় করেন। এই ছায়াছবি দুটিও বেশ জনপ্রিয় হয়। এরপর তিনি ২৫০টিরও বেশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। একজন নৃত্যশিল্পী হিসেবেও রাণী সরকার জনপ্রিয় ছিলেন।